,

নেইমার জাদুতে ব্রাজিলের বিজয়

বিরতির পরও আক্রমণের গতি সচল রাখে ব্রাজিল। এবার আর বিমুখ হতে হয়নি তাদের। ৫১ মিনিটে সফল নিশানাভেদে দলকে এগিয়ে দেন নেইমার। তিনি গোল করলেও এর রূপকার ছিলেন উইলিয়ান। বিশ্বকাপে এটি বিশ্বের সবচেয়ে দামি খেলোয়াড়ের দ্বিতীয় গোল। ৫৬ মিনিটে আবারো গোলের সুযোগ পান নেইমার। তবে তার শটটি গোলবার ঘেঁষে চলে যায়। ৫৯ মিনিটে নিশ্চিত গোল বাঁচান ওচোয়া। ডি বক্সের বাইরে থেকে পাউলিনহোর শট অসামান্য দক্ষতায় সেভ করেন গোটা ম্যাচে অনন্য নৈপুণ্য প্রদর্শন করা এ গোলকিপার। এরপর গোল পরিশোধে মরিয়া হয়ে উঠে মেক্সিকো। ঘন ঘন আক্রমণে উঠে তারা। ৬২ মিনিটে গোলও পেয়ে যাচ্ছিল। তবে কার্লস ভিলার শট অসাধারণ দক্ষতায় রুখে দেন এলিসন। পরক্ষণেও গোল আদায় করতে পারেনি বিশ্বকাপে ১৬ বারের মতো খেলা দলটি। ৮৬ মিনিটে পুরো ম্যাচে নিষ্প্রভ কুতিনহোকে তুলে রবার্তো ফিরমিনোকে নামান ব্রাজিল কোচ তিতে। এতে তাৎক্ষণিকভাবে খেলায় গতি বাড়ে। ফলে আরেকটি গোল পেয়ে যায় তারা। ৮৮ মিনিটে ঠিকানায় বল পাঠান ফিরমিনো। তবে এর কারিগর ছিলেন নেইমার। মাঝমাঠ থেকে বলটি তৈরি করে দেন ব্রাজিল যুবরাজই। শেষ পর্যন্ত নেইমারের নৈপুণ্যে ২-০ গোলের জয় মাঠ ছাড়ে ব্রাজিল। দিনের অপর ম্যাচে বেলজিয়াম ও জাপানের মধ্যকার জয়ী দলের সঙ্গেই কোয়ার্টার ফাইনালে লড়বে পাঁচবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়নরা

Sharing is caring!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


সংবাদ পড়তে লাইক দিন ফেসবুক পেজে
shares