,

তলাবিহীন ঝুড়ি আজ…

২‘শ বছর ধরে ইংরেজদের গোলামী, দ্বি-জাতি তত্ত্বের ভিত্তিতে ১৯৪৭ সালে পূর্ব পাকিস্তান নামে আত্মপ্রকাশের, মাধ্যমে পাঞ্জাব-পাঠান, নরপশুদের ২৩ বছরের শাসন নামের শোষণ। হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দী, এড. শেরে বাংলা ফজলুল হক মাও. ভাসানী হয়ে স্বাধীন বাংলার স্বপ্ন দেখা ৭ কোটি মানুষকে বিজয়ের রক্তে লাল সূর্যে এনে দিয়েছিলেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমান।
হায়েনার হাতে বিপর্যস্ত আর যুদ্ধ বিধ্বস্ত বাংলাকে সোনার বাংলা হিসেবে গড়ে তোলার প্রত্যয় নিয়ে শক্ত হাতে নোঙর তুলে বৈঠা তুলে নিয়েছিলেন বঙ্গবন্ধু। কিন্তু তার সোনার বাংলা গড়ার পথে বাঁধ সাধলো এদেশের বিপথগামী ও ভিলেন সন্তানরা। তারা রাতকে দিন আর দিনকে রাত বানিয়ে মিখ্যা প্রচার আর প্রোপাগান্ডা চালিয়ে বঙ্গবন্ধুর বিরুদ্ধে জনমত গঠনে ব্যর্থ হয়ে আত্মঘাতি সিদ্ধান্ত নিল।
যে মহান লোকটি নিজের সবকিছু বিপন্ন করে এ দেশকে শত্রুমুক্ত করে জাতিকে স্বাধীনতার স্বাদ আস্বাদনে মৌচাক ভেঙ্গে দিল তাকেই মৌ পোকা মনে করে হত্যা করলো ঘাতকরা। কতটুকু নির্দয় হলে একটা ৬ বছরের বাচ্চাকে হত্যা করা যায় দেশের ১৮ কোটি মানুষের বিবেচনার উপর ছেড়ে দিলাম।
এদিকে বাবা,মা, ভাই, স্বজন হারিয়ে নিঃস্ব ও শোকে বিহ্বল এক তরুণী সেদিন বাবার লাশের পাশে দাঁড়িয়ে শপথ করেছিলেন পিতৃহত্যার বিচার আর তলাবিহীন ঝুড়িটিকে সোনার বাংলা হিসেবে গড়ে তোলা্র। আজ বঙ্গবন্ধু নেই। কিন্তু তার আত্মা মহান শান্তিতে কন্যাকে আশির্বাদ করছে। আর বলছে, মা আমার রেখে যাওয়া বাংলা আজ শুধু সোনার বাংলা নয়, ডিজিটাল বাংলাদেশ হিসেবে বিশ্বের বুকে মাথা উঁচু করে দাঁড়াতে শিখেছে.

Sharing is caring!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


    সংবাদ পড়তে লাইক দিন ফেসবুক পেজে
    shares